সড়ক দুর্ঘটনা তার কারণ ও প্রতিকার

মোহাম্মদ নাজমুল হাসান //

নিরাপদ জীবনযাপনের একটি সার্বক্ষনিক হুমকি সড়ক দুর্ঘটনা। গতিই অনেকক্ষেত্রে হয়ে পড়েছে মানুষের জীবনের অগ্রগতির অন্যতম কারণ কিন্তু এই গতির ফলে প্রায় প্রতিদিনই সড়ক দুর্ঘটনা সৃষ্টি হচ্ছে আর প্রাণ হারাচ্ছে অসংখ্য মানুষ খবরের কাগজ খুললেই চোখে পড়ে সড়ক দুর্ঘটনা নির্মম খবর এর জন্য এ যেন নিত্য নৈমত্তিক ব্যাপার হয়ে উঠেছে আমাদের জন্য সড়ক দুর্ঘটনা মৃত্যদূত হয়ে দাঁড়িয়েছে আমাদের দরজায় সকাল বেলা থেকে সুস্থ দেহে কর্মক্ষেত্রের উদ্দেশ্যে বের হলেও আমরা সুস্থ হয়ে বাড়িতে ফিরতে পারবো কিনা তা জানিনা। এর মরণ ছোবল থেকে বাচার উপায় বের করা অত্যন্ত জরুরি সড়ক দুর্ঘটনার ফলে সবচেয়ে বড় ক্ষতি হচ্ছে তাহলে মানুষ সম্পদের অপচয় এ ক্ষতি অপূরণীয় তারপরে রয়েছে অর্থনৈতিক ক্ষতি ।
সড়ক দুর্ঘটনার অন্যতম হলো:
১. দক্ষ প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ডাইভারদের অভাব
২. রাস্তায় অতুলনীয় পথচারী ও গাড়ির অধিক্য
৩. গাড়ির বহন ক্ষমতার অধিকারী নেওয়া
৪. গাড়ির অনিন্ত্রিত গতিবেগ
৫. হেরোকু তায়লোর ট্রাফিক আইনের প্রয়োগ না করা।
৬. অনিয়ন্ত্রিত ওভারটেকিং
৭. ফিটনেসবিহীন গাড়ি অবাধ বিচরণ ইত্যাদি।
সড়ক দুর্ঘটনা বর্তমানে আমাদের সমাজে সমস্যায় পড়েছে হয়েছে মানুষ হয়ে পড়েছে নিরাপত্তাহীন ওদের নিয়ে তোর নষ্ট হচ্ছে মূল্যবান জীবন তাই দেশ ও জাতি সর্বোপরি দেশের মানুষের করানোর জন্য এ সমস্যা থেকে উত্তরণের পথ খুঁজে বের করা প্রয়োজন

সড়ক দুর্ঘটনা রোধে যেসব পদক্ষেপ গ্রহণ করা যেতে পারে:

১. চালককে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত হতে হবে
২. অভারর্টেকিং প্রতিযোগিতা থেকে বিরত থাকতে হবে
৩. রিকন্ডিশন গাড়ির ব্যবহার বন্ধ করতে হবে এবং গাড়ি চলাচলের উপযুক্ত কিনা তা পরীক্ষা করে দেখতে হবে
৪. ট্রাফিক আইনের যথাযথ প্রয়োগ করতে হবে
৫. গাড়ির গতি সীমা নিয়ন্ত্রণে রাখতে প্রয়োজনে সীমালংঘনকারী দের শাস্তির বিধান করতে হবে

উল্লেখিত সুপারিশমালা যদি আমরা যথাযথ প্রয়োগ করতে পারি তাহলে সড়ক দুর্ঘটনা থেকে অনেকাংশে রক্ষা পাবো দুর্ঘটনার জন্য দায়ী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নিলেও দুর্ঘটনার হার কমে আসবে দুর্ঘটনার কষ্ট বা সমস্যা কে গুরুত্বসহ বুঝতে হবে তাহলেই সড়ক দুর্ঘটনায় কমবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here