বিশ্ব পরিবেশ দিবস উপলক্ষে গ্রীণএনভায়রনমেন্ট মুভমেন্টের বিশেষ ওয়েবিনার

মোঃ নুরুজ্জামান, মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি

৫ জুন বিশ্ব পরিবেশ দিবস
এবারের বিশ্ব পরিবেশ দিবস’ ২০২১’র প্রতিপাদ্য বিষয় “বাস্তুতন্তের পুনরুদ্ধার কর”
এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে গ্রীণ এনভায়রনমেন্ট মুভমেন্ট, মানিকগঞ্জ জেলা কমিটির উদ্যোগে বিশেষ ওয়েবিনার সভা অনুষ্ঠিত।
শুক্রবার (৪ জুন) বিকাল ৪ টার সময় জুমের মাধ্যমে এক ওয়েবিনার আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন।ওয়েবিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন প্রফেসর মল্লিক আকরাম হোসেন, প্যানেল স্পিকার হিসেবে বক্তব্য রাখেন মানিকগঞ্জ ২ আসনের সংসদ সদস্য ও আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক উপকমিটির সদস্য ড. মমতাজ বেগম,সাবেক অতিরিক্ত সচিব জহিরুল ইসলাম,জেলা প্রশাসক এস এম ফেরদৌস, গ্রীন এনভায়রনমেন্ট মুভমেন্টের সাধারণ সম্পাদক ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী অধ্যাপক মহিউদ্দিন মাহী, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সহযোগী অধ্যাপক ড. মোঃ শহীদুল ইসলাম, চীনা বিজ্ঞান একাডেমির বণ্যপ্রাণী ও পরিবেশ বিষয়ক গবেষক ড. নাসির উদ্দীন,পরিবেশকর্মী এরলিন্ডা সি. কার্তিকা, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় বন ও পরিবেশ উপকমিটির সদস্য ও পরিবেশ কর্মী এ্যাড. মিজানুর রহমান রুবেল, পরিবেশ কর্মী ও মানিকগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক এ্যাড. দীপক ঘোষ,দৌলতপুর উপজেলা চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম রাজা, মানিকগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি গোলাম সারোয়ার ছানু, মানিকগঞ্জ জেলা প্রেসক্লাবের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোঃ নুরুজ্জামান প্রমুখ,
সভায় সঞ্চালনা করেন মানিকগঞ্জ জেলা গ্রীণ এনভায়রনমেন্ট মুভমেন্টের সাধারণ সম্পাদক রাজ্জাক হোসাইন রাজ ।

সভার প্রধান অতিথি, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সফল বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন তাঁর বক্তব্যে বলেন, পরিবেশকে অবহেলা করে মানব উন্নয়ন সম্ভব নয়। পরিবেশকে অবহেলা করার জন্যই প্রকৃতি মানুষের উপর প্রতিশোধ নিচ্ছে, কাজেই প্রকৃতিকে ভালোবাসতে হবে এবং মানুষের কল্যাণেই প্রকৃতিকে বাচিঁয়ে রাখতে হবে।তিনি আরও বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশের পরিবেশ ও প্রাণ প্রকৃতির উন্নয়নে নানামুখী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন এবং সেগুলোর সফল বাস্তবায়ন সবুজ বাংলাদেশ বিনির্মানের স্বপ্নকে সফল করবে যার ফলাফল আমরা ক্রমশ দেখতে পাচ্ছি। সেদিন আর বেশি দূরে নয় যেদিন বিশ্বের অন্যান্য রাষ্ট্রগুলো বাংলাদেশের পরিবেশ ও প্রকৃতির উন্নয়নের রূপরেখা কে নিজেদের দেশের পরিবেশের উন্নয়নে দৃষ্টান্ত হিসেবে ব্যবহারের জন্য গ্রহণ করবে। প্রধান অতিথি তাঁর বক্তব্যে যত্রতত্র ইট ভাটা ও শিল্পায়ন এর ফলে কৃষিজমি ও বনভূমির ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার পাশাপাশি একটি জনপদের পরিবেশের কি কি ক্ষতি হতে পারে সে বিষয়ে আলোকপাত করেন এবং মানিকগঞ্জের স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের পরিবেশ রক্ষায় সজাগ ও সোচ্চার ভুমিকা গ্রহণের আহবান জানান।

সংসদ সদস্য ড. মমতাজ বেগম বলেন, আমার নির্বাচনী এলাকায় ইটের ভাটা মালিকদের জরিমানা করে সেই টাকা আমি কৃষকের মাঝে বিলিয়ে দিয়েছি কেননা ফসলি জমি নষ্ট হওয়ায় তারা সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্থ তাই এই টাকার হক তাদের। সভার অন্যান্য প্যানেল স্পিকারগণ দেশের পরিবেশ খাতে অধিক গবেষণার ওপর গুরুত্বারোপ করেন ও নদীমাতৃক বাংলাদেশের নদী সংরক্ষণের উপর বিশেষ গুরুত্ব প্রদান করে এক্ষেত্রে যথাযথ বরাদ্দ প্রদানের জন্য সরকারের প্রতি আহবান জানান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here