শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
- Advertisement -
চট্টগ্রাম বিভাগকক্সবাজার"অতীতের কাছে বর্তমানের খোলাচিঠি"

“অতীতের কাছে বর্তমানের খোলাচিঠি”

শেয়ার করুন
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

লেখক———-শহীদ আজম

আজ আমার দুঃখ অভিলাষী  দিন।
ধুলোপড়া জমে থাকা কষ্টগুলো দীর্ঘশ্বাসের তপ্ত হাওয়ায় চড়ে আকাশের বুকে যেন পুঞ্জীভুত ঘন কালো মেঘ।দুঃখ মেঘের ভারে ভারাক্রান্ত আকাশটা ও দিগন্তের কাছে ন্যুয়ে পড়ে মাটিকে দিতে চায় তার ভারের কিয়দাংশ। মাটির অপারগতায় অগত্যা পুঞ্জীভুত ভারী মেঘগুলো ঝরে পড়ে দু’চোখ বেয়ে নীল বৃষ্টি হয়ে।ভারমুক্ত আকাশটা হাল্কা পরিষ্কার হলেও ধুলো আর পানি মিলে ভীষণ কর্দমাক্ত মনের উঠোন।আর সেই উঠোনে আমি সুখের আগাছা বেছে দুঃখের বীজ বুনি,দুঃখ ফলাব বলে।

আজ আমার দুঃখ অভিলাষী দিন।
কারন এই দিনে তুমি বদলে যাওয়ার বাহানায় আমার জীবনের গতি পথে এঁকে দিয়েছিলে আস্ত এক দাঁড়িচিহ্ন।সেদিন তোমাকে আর বলা হয়ে উঠেনি আমার দুঃখগাঁথা। চারিদিক থেকে ধেয়ে আসা ‘না’ শুনতে শুনতে ‘ না’ এর জগতের একঘেয়ে বন্দী জীবনে যখন হাঁপিয়ে উঠছিলাম, ঠিক তখনি একটি বার ‘হ্যাঁ’ শুনার ব্যাকুলতায় তোমার পানে ছুটে গিয়েছিলাম আমি।অথচ কি অবলীলায় সেই তুমিও আবার ‘না’ এর জগতে ঠেলে দিলে আমায়।সেই থেকে এই ‘না’এর ডেরায়  আমার স্থায়ী  বসবাস। ‘না’ থেকে ‘না’ এর   পরাগায়িত প্রজননের ক্রমাগত উৎপাদিত  ধ্বনি, চতুর্পাশে ঘিরে থাকা অদৃশ্য বদ্ধ দেয়ালে প্রতি-ধ্বনিত হয়ে আমার কানের স্বচ্ছ পাতলা ডায়াফ্রামে হাতুড়িপেটা করে আজও প্রতিনিয়ত। ওফ্ ! কি অসহ্য যন্ত্রণায় দু’হাতে কান চেপে রই আমি, একটু প্রশান্তির আশায়। সে খবর হয়তোবা তোমার কানে কখনো পোঁছাইনি কিংবা সুখ সমুদ্রে অবকাশ যাপনের ব্যস্ততায় ফুসরত কভু মিলেনি তোমার সে খবর নেয়ার। সুরস্রস্টা মোজার্টের অমর সৃষ্টি সিম্পোনির সুর লহরী ও ইদানিং শ্রুতি কটু লাগে আমার।

আজ আমার দুঃখ অভিলাষী দিন।
এই দিনে আমার জীবন থমকে দাঁড়িয়েছিল বলে জীবনটাকে সেভাবে ছেঁকে দেখে জীবনের স্বাদ নেয়া হয়নি আর কখনো। জীবন এখনো প্রতিনিয়ত খাবি খেয়ে বেড়ায় চৌরাস্তার মোড়ে ঠিক সেখানটায়,যেখানে আমার হাত  ছেড়েছিলে তুমি অধিক সুখের আশায়। স্বীকৃতি প্রাপ্ত অচল এই আমি, জীবন নামক জুয়ার গোলাকার ঘুর্নায়মান চাক্তিতে ঘাপটি মেরে বসে থাকি, পৃথিবীর চোখে সচল প্রতিয়মান হওয়ার ব্যর্থ চেষ্টায়।

আজ আমার দুঃখ অভিলাষী দিন।
ফেলে আসা স্মৃতি গুলো পোঁড়ায় তাই একটু বেশি করে এই দিনে।
কেউ যেন বল্লমের সুতীক্ষ্ণ ফ্বলা দিয়ে  খুঁচিয়ে  খুঁচিয়ে আমার নরম,মোলায়েম কলিজাটারে ক্ষত-বিক্ষত করে চলছে অবিরাম। আর আমি মধ্যবিত্তের আটপৌরে জীবনে অভ্যস্ত, সংসারের ঘানি টেনে ক্লান্ত গ্রামীণ গৃহবধূর ছেঁড়া কাঁথা সিলাইয়ের ন্যায় ক্ষত-বিক্ষত কলিজাটাতে  জোড়াতালি দিতে ব্যস্ত অবিরত।রক্তক্ষরণ তবু চলে অগোচরে নিয়মিত।  ফিনকি দিয়ে উপচিয়ে পড়া রক্তক্ষরনের তেজ প্রবাহের ধাক্কা, কোলস্টেরল জমে যাওয়া সরু,সংকোচিত  ব্লাড় ভেসেল গুলো সামলাতে না পেরে হয়ত একদিন এই ‘না’ এর জগত থেকে ‘না’ফেরার দেশে চলে যাব আনমনে,চুপিসারে । তখন না হয় আরেকটিবার শেষবারের মত ক্যামিলিয়া হাতে আমার শব যাত্রায় শামিল হইও তুমি, ভিনগ্রহের কোনো এক অচেনা অজানা আগন্তুক এলিয়নের  বেশে।

জামিল চৌধুরী
সিনিয়র বার্তা সম্পাদক
দেশান্তর.কম

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সর্বশেষ খবর

- Advertisement -

জনপ্রিয় খবর

অন্যান্য সংবাদ